ঢাকারবিবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ১২:৪০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পাকিস্তানকে হাল্কাভাবে নেয়ার সুযোগ নেই: মাহমুদুল্লাহ

মাহমুদুল হাসান, সাব-এডিটর
জানুয়ারি ২২, ২০২০ ১১:১৩ পূর্বাহ্ণ
পঠিত: 105 বার
Link Copied!

নানা সংশয়ের পর অবশেষে পাকিস্তানে পাড়ি জমাতে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। নিরাপত্তা শঙ্কায় শুরুতে নানা আলোচনা-সমালোচনা চলতে থাকে দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের মধ্যে। অবশেষে তিন ধাপে পাকিস্তান সফরের বিষয়ে একমত হয় দুই দেশ। আর বাংলাদেশ সরকারের সবুজ সংকেত পাওয়ায় পাকিস্তানে উড়াল দিতে যাচ্ছেন টাইগাররা। সেই লক্ষ্যে তিন দিনের অনুশীলনও করেছে রাসেল ডোমিঙ্গোর শিষ্যরা।
মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনে নিজেদের শেষবারের মতো ঝালিয়ে নেয় তামিম, মুস্তাফিজ-মাহমুদুল্লাহরা।
প্রথম ধাপে টি-টোয়েন্টি সিরিজে পাকিস্তানকে মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ। আইসিসি র‌্যাংকিংয়ে দুই দলের অবস্থান আকাশ-পাতালে। শীর্ষে আছে পাকিস্তান, আর ৯ নম্বরে আছে বাংলাদেশ। যোজন-যোজন দূরত্ব থাকলেও, সাম্প্রতিক পারফর্মেন্সে খুব বেশি সুবিধাজনক অবস্থানে নেই পাকিস্তান। সব শেষ ১০ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের ৮টিতেই হেরেছে মিসবাহ-উল হকের শিষ্যরা। তবে এসব পরিসংখ্যান নিয়ে মাথা ঘামাতে রাজি নন টাইগার অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।
পাকিস্তান সফরে যাওয়ার আগে শেষ দিনের অনুশীলন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মাহমুদুল্লাহ। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান শেষ কয়েকটা সিরিজ খারাপ খেলেছে কিন্তু আমি মনে করি তারা অনেক শক্ত প্রতিপক্ষ। মনে রাখতে হবে এবার তাদের নিজেদের মাটিতে খেলা। যদিও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তারা ঘরের মাটিতেই হেরেছে, তবু তারা শক্তিশালী দল। আবার আমার মনে হয় আমাদের স্কোয়াডে যারা আছে তারাও খুব ভালো ফর্মে আছে, টাচে আছে। আমরা যদি নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে পারি তবে আমরাও জিততে পারবো।’
নিজেদের সেরাটা দেয়ার প্রত্যাশা জানিয়ে মাহমুদুল্লাহ বলেন, ‘সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত এবং নিজেদের সামর্থ্য ঠিকভাবে ইউটিলাইজ করতে পারা নিয়েই আমাদের এখন মূল ভাবনা।’
নিজেদের ব্যাটিং অর্ডার নিয়েও চিন্তিত নন সাইলেন্ট কিলার খ্যাত মাহমুদুল্লাহ। তিনি বলেন, ‘অনেক ব্যাটসম্যানই আছে যাদের ভিন্ন ভিন্ন ব্যাটিং অর্ডারে ব্যাট করা লাগতে পারে। আফিফ লাস্ট সিরিজে মিডল অর্ডারে ব্যাট করেছে। বিপিএলে টপ-অর্ডারে ব্যাটিং করেও অনেক ভালো করেছে। টপ-অর্ডারের অনেককেও হয়তো লোয়ার মিডল-অর্ডারে ব্যাট করতে হতে পারে৷ এ জিনিসগুলো মানসিকভাবে ধারণ করা ও সে অনুযায়ী অনুশীলন করাটা বেটার বলে আমি মনে করি। কিন্তু দিনশেষে যার যেটুক সুযোগ থাকবে সে যেন সেটুকু দিয়ে চেষ্টা করে।’
আগামীকাল (বুধবার) রাতে বিশেষ ফ্লাইটে পাকিস্তানের উদ্দেশে দেশ ছাড়ার কথা আছে বাংলাদেশ দলের। পাকিস্তানে পৌঁছে ২৩ জানুয়ারি ঐচ্ছিক অনুশীলন করবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। ২৪ জানুয়ারি লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি। একই ভেন্যুতে ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি হবে দ্বিতীয় ও তৃতীয় টি-টোয়েন্টি।

দৈনিক বাংলাদেশ আলো পত্রিকায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না