ঢাকাশুক্রবার, ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ৮:৩৫
আজকের সর্বশেষ সবখবর

হবিগঞ্জে করোনা পরিস্থিতিতে ঝুকিঁতে আছে পরিকল্পনা বিভাগের ৫শতাধিক স্বাস্থ্যকর্মী

মাহমুদুল হাসান, সাব-এডিটর
এপ্রিল ১৯, ২০২০ ৬:৩৮ অপরাহ্ণ
পঠিত: 45 বার
Link Copied!

মহামারি করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন হবিগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের ৫শতাধিক স্বাস্থ্য কর্মী। পিপিই, মাস্কসহ সুরক্ষার কোন উপকরণ না পেয়েও জীবনের ঝুকি নিয়ে মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে এসব স্বাস্থ্য কর্মী। হবিগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ সূত্র জানায়, হবিগঞ্জ জেলায় এ বিভাগের কর্মকর্তাসহ ৫শতাধিক মাঠ কর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে অফিসে কর্মরত ৪০ জন। পরিবার কল্যাণ সহকারি ৩শ জন, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক ৭৮ জন, পিয়ন ২৫ জনসহ বিভিন্ন পদে আরো ৫২ জন কর্মরত রয়েছেন। তারা এই কঠিন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন। কিন্তু সুরক্ষার জন্য তাদের কোন ব্যবস্থা নেই। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক স্বাস্থ্য কর্মীরা কাজ করে যাচ্ছেন। এ ব্যাপারে পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক শাহিনা আক্তার জানান, করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি যখন দেশে শুরু হয়েছিল সেই সময় থেকে এখন পর্যন্ত আমরা সরকারের নির্দেশনায় মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু আমরা কোন ধরণের সুরক্ষা উপকরণ পাইনি। তিনি বলেন-প্রত্যান্ত অঞ্চলে আমাদের কাজ করতে হয়। কিন্তু আমাদের সুরক্ষার জন্য এখনও সরকারি ভাবে কোন কিছুই বরাদ্দ পাইনি। তবে দেশের জন্য আমরা জীবন বাজী রেখে কাজ করে যাবো। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালনক ডাঃ নাসিমা খানম ইভা জানান, এ বিভাগে অফিসারসহ ৫শতাধিক স্বাস্থ্য কর্মী রয়েছেন। এর মধ্যে যারা অফিসে কাজ করেন তারা কয়েকজন পিপিইসহ সুরক্ষার জিনিস পেয়েছেন। অফিসে কাজ করেন অধিকাংশই সুরক্ষার কোন জিনিস পাননি। মাঠ কর্মীরা তো রয়েছেনই। তিনি বলেন-জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক এ বিভাগের কর্মীরা জনগণের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চতের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি স্বাস্থ্য কর্মীদের সুরক্ষার জন্য পিপিই, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ ব্যবহারের অন্যান্য উপকরণ বরাদ্ধ দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান জানান। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাক্তার মুখলিছুর রহমান উজ্জল জানান, এ বিভাগটি আমাদের চেয়ে আলাদা। তারপরও মাতৃমঙ্গলে যারা কাজ করেন আমরা তাদেরকে কিছু পিপিই বরাদ্ধ দিয়েছি।

দৈনিক বাংলাদেশ আলো পত্রিকায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না