ঢাকামঙ্গলবার, ১৬ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৩:৪৫
আজকের সর্বশেষ সবখবর

লক্ষ্মীপুরে সেনাবাহিনী দেখলে ভয়ে দোকানপাট বন্ধ!

মাহমুদুল হাসান, সাব-এডিটর
মে ৪, ২০২০ ২:৫৪ অপরাহ্ণ
পঠিত: 34 বার
Link Copied!

লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ শরিফ হোসেন

লক্ষ্মীপুর জেলা রায়পুর উপজেলায় বাজার সহ বিভিন্ন স্থানে দেখা যায় সেনাবাহিনী দেখলে সকল দোকান দার দোকানপাট বন্ধ করে চলে যায়।সোমবার (৪ এপ্রিল) দুপুর ১২টা। লক্ষ্মীপুরের রায়পুর শহরে প্রায় প্রতিটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলা। বিভিন্ন শ্রেনীপেশার মানুষ ইচ্ছেমত বাজার করছেন। মটরসাইকেল ও অটোচালকরা অবাধে চলাচল করছেন। মনে হচ্ছে যেন শহরে ঈদের আমেজ চলছে। ১২টা ২৫ মিনিটে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার ভুমির নের্তৃত্বে সেনাবাহিনী শহরে অভিযানে নামলেন।হঠাৎ চারিদিক থেকে শব্দ আসছে “কইরে তোরা, দোকান আটকা-দোকান আটকা-আইতাছে সেনাবাহিনী” এ শব্দ আসার সাথে সাথে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হতে শুরু করলো। অন্যদিকে প্রধান সড়কে সেনাবাহিনী দেখেই মাক্সবিহীন তিন যুবক পালানোর-সময় আটক হয়ে নয়টি মাক্স কিনে বাড়ী ফিরলো। এভাবে মাক্সবিহীন পথচারি-ছোট যানচলাচলকারিদের মাক্স কিনে বাড়ী ফিরতে বাধ্য হলেন। এ কর্মকান্ড দেখে সচেতনমহন অভিভুত হয়েছেন।রায়পুরে ক্যাপ্টেন রাহাতের-নের্তৃত্বে সেনাবাহিনীর একটি দল টহল দিয়ে মাইকিং করে জনগনকে বাড়িতে নিরাপদে থাকার ও অপরকে নিরাপদে রাখার পরামর্শ দিতে দেখা গেছে। সোমবার (০৪ এপ্রিল) সকাল থেকে উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালতের সঙ্গে পুরো শহর জুড়ে কাজ করেছেন তারা। ১৩ মামলায় পথচারি ও ব্যবসায়ীকে ১১৬০০ টাকা টাকা অর্থদন্ড দেয়া হয়েছে।গত বুধবার (১ এপ্রিল) আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে ২ এপ্রিল থেকে সাধারণ মানুষের ঘরে থাকা নিশ্চত করতে সেনাবাহিনী কঠোর অবস্থানে যাবে বলে ঘোষণা দেয়।সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, প্রশাসক কর্তৃক সব দোকানপাট বন্ধ ঘোষণার পর উপজেলার বিভিন্ন বাজার ও গ্রামের অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রয়েছে। পৌর শহর এলাকায় সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত চলে ঈদের আমেজ। সরকারি নিদের্শ অমান্য করে দোকান খোলা রাখায় ও অযোথা ঘুরাফেরা করায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অর্থদন্ড দেন সহকারি কমিশনার ভুমি আক্তার জাহান সাথি। করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে এর আগেও টহল দিয়েছেন সেনা সদস্যরা।এ ব্যাপারে সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন রাহাত জানান, করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯) প্রতিরোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রশাসনের সাথে সেনাবহিনী মাঠে কাজ করছে। কোথাও যেন জনসমাগম ও কোন মানুষ যেন মাক্সবিহীন বের না সে বিষয়ে নজরদারি রাখতে নিয়মিত টহল অব্যাহত থাকবে।

দৈনিক বাংলাদেশ আলো পত্রিকায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না