ঢাকাশুক্রবার, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ৮:৩২
আজকের সর্বশেষ সবখবর

সারাদিন ল্যাবে কাজ করে সন্ধ্যায় শুনলেন তারা স্বামী-স্ত্রী দুই জনই করোনা পজেটিভ!

মাহমুদুল হাসান, সাব-এডিটর
মে ১৫, ২০২০ ৩:২২ পূর্বাহ্ণ
পঠিত: 28 বার
Link Copied!

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি,

 

কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার কলেজ মোড়ের আর্কেডিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ল্যাব টেকনোলজিষ্ট সারাদিন ল্যাবে কাজ করে সন্ধ্যায় শুনলেন তারা স্বামী-স্ত্রী দুই জনই করোনা পজেটিভ। নমুনা দিয়েছেন তিনদিন পূর্বে। ওই ল্যাবে কাজ করে আরও সাতজন। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির মালিক ও পরিচালকের স্ত্রী গত শুক্রবার করোনা পজেটিভ ফলাফল আসে। ওইদিন ডাক্তার সারাদিন রোগী দেখেছেন তার চেম্বারে। এ ঘটনায় অনেকের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

 

বৃহস্পতিবার নাগেশ্বরীর দুইজনের করোনা শনাক্তের ফল আসে। তারা দুজনই স্বামী-স্ত্রী। স্বামী নাগেশ্বরীর কলেজমোড়ের আর্কেডিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারের ল্যাব টেকনোলজিস্ট। তার বাড়ি পৌর এলাকার বাগডাঙ্গা গ্রামে, থাকেন উপজেলা সদরের হাজিপাড়ায় শ্বশুর বাড়িতে। শনাক্তের দিন তিনি শ্বশুরবাড়িতে ছিলেন।

 

আর্কেডিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিচালক ও মালিক ডা. আমিনুর রহমান লালমনিরহাট সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র কন্সালটেন্ট হিসেবে কর্মরত। গত শুক্রবার ডা. আমিনুর রহমানের স্ত্রীর করোনা পজেটিভ ফল আসে। শুক্রবার সারাদিন ডা. আমিনুর রহমান আর্কেডিয়ায় রোগী দেখেছেন। এর আগে লালমনিরহাটে নমুনা দেন ডাক্তার নিজে। তবে তার ফলাফল নেগেটিভ পাওয়া যায়। পরে রংপুরে তার স্ত্রী ও দুই সন্তানের নমুনা দিলে দুই সন্তানের নেগেটিভ আসলেও স্ত্রীর পজেটিভ আসে।

 

ডা. আমিনুর রহমান জানান, তিনি সর্বশেষ গত শুক্রবার রোগী দেখেছেন। এরপর ওই ছেলে ল্যাবে ছিল কিনা তিনি জানেন না। ওইদিন তার স্ত্রীর পজেটিভ আসায় তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন, তার নেগেটিভ এসেছে বলে জানান তিনি।

 

এদিকে কলেজমোড়ে খোঁজ নিয়ে দেখা যায় বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত আর্কেডিয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টার খোলা ছিল এবং ওই ল্যাব টেকনোলজিস্ট সারাদিন ল্যাবে কাজ করেছেন। বন্ধ করার পর বাড়ি গেলে ফলাফল আসে সে করোনা পজেটিভ।

 

নাগেশ্বরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, গত ১১ মে তাদের নমুনা নেয়া হয়। আজ পজেটিভ এসেছে। তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তার সংস্পর্শে যারা এসেছে তাদের সবার নমুনা নেয়া হবে।

 

নাগেশ্বরী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নূর আহম্মেদ মাসুম জানান, ওই ডায়াগনস্টিক সেন্টার লকডাউন করে দেয়া হয়েছে। তারা স্বামী-স্ত্রী শ্বশুর বাড়িতে রয়েছে। ওই বাড়িও লকডাউন করা হয়েছে।

 

কুড়িগ্রাম সিভিল সার্জন ডা. হাবিবুর রহমান জানান, বিষয়টি যদি এমন হয়ে থাকে তাহলে ওইদিন সে সব রোগী সেবা নিয়েছিল বা কন্টাক্টে এসেছিল সবাইকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হবে। জেলায় এ পর্যন্ত ৪০ জনের করোনা পজেটিভ এসেছে। এরমধ্যে ছয়জন সুস্থ হয়েছেন।

দৈনিক বাংলাদেশ আলো পত্রিকায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না