ঢাকাবুধবার, ৭ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৯:৫০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নিজ অর্থায়নে ১ কি.মি রাস্তা মেরামত করলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী জামাল হোসেন

বিডি আলো ডেস্ক
জুন ১০, ২০২০ ৪:৪৮ অপরাহ্ণ
পঠিত: 61 বার
Link Copied!

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নের বসন্তপুর-শক্তিয়ারখলা বাজারের প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তায় নিজ অর্থায়নে সংস্কার কাজ করেছেন বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নে আগামি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মো. জামাল হোসেন।  মিছাখালি রাবার ড্যাম হতে শক্তিয়ারখরা বাজার পর্যন্ত রাস্তাটি নিজে শ্রমিকদের সাথে সর্বক্ষণ থেকে এই রাস্তাটি মেরামত করেন তিনি।

পুরানগাঁও গ্রামের কৃষক রফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের কে প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে উৎপাদিত সবজি নিয়ে শক্তিয়ারখলা বাজারে আসতে হয়। এতোদিন খুব কষ্ট করে আসতাম। আজকে রাস্তায় কাজ করার ফলে আসতে কোন সমস্যা হয়নি। আমার পক্ষ থেকে জামাল ভাইকে ধন্যবাদ জানাই এই রাস্তার কাজ করে দেওয়ার জন্য।

বসন্তপুর গ্রামের বকুল মিয়া বলেন, শক্তিয়ারখরা বাজারে প্রয়োজনীয় দরকার থাকার পরও আসতে পারি না, শুধু মাত্র এই রাস্তায় কাদা থাকার কারণে। জামাল হোসেন এই রাস্তার কাজ কারায়  ইউনিয়নের উলাসনগর, বসন্তপুর, পুরানগাঁ, জলিলপুর, গন্ডামারাসহ আশ পাশের মানুষের এই রাস্তা দিয়ে আসার উপযোগি হয়েছে। আমার পক্ষ থেকে জামালকে ধন্যবাদ জানাই।

গন্ডামারা গ্রামের কৃষক আলেক মিয়া বলেন, আমাকে ব্যবসায়ীক কাজে প্রতিদিন শক্তিয়ারখলা বাজারে আসেতে হয়। রাবার ড্যাম হতে শক্তিয়ারখলা বাজার পর্যন্ত রাস্তায় কাদা থাকার কারেণ খুব র্দুভোগ পোহাতে হতো। আজকে রাস্তার সংস্কার কাজ করা দেখে খুব ভালো লেগেছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে জামালকে ধন্যবাদ জানাই।

 

বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়ন মোটর সাইকেল মালিক-চালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সেলিম আহমদ বলেন, এই রাস্তার কারণে আমরা লাউড়ের গড়, বিন্নাকুলি, যাদুকাটা নদী, বসন্তপুর বাজারের দিকে যাত্রী নিয়ে যেতে পারি না। চেয়ারম্যান প্রার্থী জ্মাাল হোসেন কাকা এই রাস্তার সংস্কার কাজ করে দেওয়ায় আমাদের মোটর সাইকেল মালিক-চালক সমিতির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই।

সোমবার রাস্তা মেরামত কালীন সময়ে চেয়াম্যান প্রার্থী জামাল হোসেন বলেন, দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের কেন্দ্রস্থল হলো শক্তিয়ারখলা বাজার। কারণ এখানে রয়েছে ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র এবং ইউনিয়নের একমাত্র উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শক্তিয়ারখলা উচ্চ বিদ্যালয়। যার কারণে প্রতিদিন উলাসনগর, বসন্তপুর, পুরানগাঁ, জলিলপুর, গন্ডামারাসহ আশ পাশের এলাকার প্রায় ১ হাজার মানুষ এই রাস্তা দিয়ে আসা যাওয়া করে। কিন্তু প্রতিবছর বর্ষাকাল আসলেই এই রাস্তায় প্রচুর পরিমাণে কাদা জমে যাওয়ার কারণে এ রাস্তা দিয়ে গাড়িতে চলাচল করলে প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনা ঘটে। এছাড়াও সাধারণ মানুষ হেঁটে চলাচল করতে পারে না। তাই আমি এলাকার যুবকদের সাথে নিয়ে রাস্তাটি সংস্কার কাজ করছি।

উল্লেখ্য, জামাল হোসেন এর বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ সভাপতি জিল্লুর রহমান বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নের ২ বারের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। জিল্লুর রহমানের হাত ধরেই বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নের একমাত্র উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শক্তিয়ারখলা উচ্চ বিদ্যালয় ১৯৯৬ সালে প্রতিষ্ঠা পায়। প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে বর্তমান পর্যন্ত জিল্লুর রহমান শক্তিয়ারখলা উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

 

দৈনিক বাংলাদেশ আলো পত্রিকায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না