ঢাকাবুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৮:১৩
আজকের সর্বশেষ সবখবর

প্রায় ৮৭টি দেশে জুনের তৃতীয় রোববারটি পালন করা হয় ‘ফাদার্স ডে’ বা ‘বাবা দিবস’

মাহমুদুল হাসান, সাব-এডিটর
জুন ২১, ২০২০ ৯:০৭ অপরাহ্ণ
পঠিত: 17 বার
Link Copied!

প্রকাশ দেব, চট্টগ্রাম।

বাবাদের প্রতি ভালোবাসা, সম্মান, কৃতজ্ঞতা ও আবেগের বহিঃপ্রকাশে বিশ্বের প্রায় ৮৭টি দেশে জুনের তৃতীয় রোববারটি পালন করা হয় ‘ফাদার্স ডে’ বা ‘বাবা দিবস’ হিসাবে। কিন্তু এই দিনটির উৎপত্তি ঠিক কবে থেকে, কীভাবে বা এর নেপথ্যে কে রয়েছেন, সেই ইতিহাস আমাদের জানা দরকার।

মা দিবসের পরিপূরক হিসেবে বিশ শতকের গোড়ার দিকে যুক্তরাষ্ট্রে পিতৃত্ব উদ্‌যাপনে ফাদার্স ডে উদ্বোধন করা হয়েছিল। এর নেপথ্যে রয়েছে সোনোরা স্মার্ট ডোড নামের এক মহিলার গল্প। আরকানসাসে জন্মগ্রহণকারী সোনোরা ১৯১০ সালে ওয়াইএমসিএ-তে ওয়াশিংটনের স্পোকানে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ফাদার্স ডে। এই দিনটির প্রথম উদ্‌যাপন হয় ১৯১০ সালের জুন মাসের ১৯ তারিখে। সোনোরা খুব অল্প বয়সে মাকে হারান। তাঁর বিপত্নীক বাবা গৃহযুদ্ধের অভিজ্ঞ সৈনিক উইলিয়াম জ্যাকসন স্মার্ট, তাঁর ছয় সন্তানকে একাই বড় করেছেন।

১৯০৯ সালে সেন্ট্রাল মেথোডিস্ট এপিসকোপাল চার্চে আন্না জার্ভিসের ‘মা দিবস’ সম্পর্কে একটি ধর্মীয় ভাষণ শোনার পর সোনোরা উৎসাহিত হন এবং তাঁর যাজকের কাছে যান। যাজকদের কাছে তিনি আবেদন করেন, পিতাদের প্রতি সম্মান জানাতে একই রকম একটা ছুটি থাকা উচিত। যদিও সোনোরা ৫ জুন তাঁর বাবার জন্মদিনের দিনটিকে ফাদার্স ডে হিসেবে পালন করার ইচ্ছা পোষণ করেছিলেন, কিন্তু এ সম্পর্কিত ধর্মীয় ভাষণ প্রস্তুত করার পর্যাপ্ত সময় ছিল না বলে যাজকেরা উদ্‌যাপনটি জুনের তৃতীয় রোববারে পিছিয়ে দেন।

সোনোরা ও তাঁর সঙ্গীরা ফাদার্স ডে-র সরকারি স্বীকৃতির জন্য দশকের পর দশক প্রচার চালিয়ে গেছেন। ১৯২০-এর দশকে সোনোরা শিকাগোর আর্ট ইনস্টিটিউটে পড়াশোনা করার কারণে ফাদার্স ডে উদ্‌যাপনের এই প্রচারটি বন্ধ করে দিয়েছিলেন বলে স্পোকানে প্রাথমিকভাবে এর তেমন সাফল্য আসেনি। ১৯৩০-এর দশকে সোনোরা স্পোকানে ফিরে আসেন এবং জাতীয় পর্যায়ে সচেতনতা বাড়াতে আবারও প্রচার শুরু করেন।

১৯৩৪ সালে নিউইয়র্ক অ্যাসোসিয়েটেড মেনস অ্যাওয়্যার রিটেইলারদের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত ফাদার্স ডে কাউন্সিলের সহায়তা পান সোনোরা। ১৯৮০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে ফাদার্স কাউন্সিলে লেখা হয়, ‘ফাদার্স ডে সব পুরুষের জন্য উপহার-ভিত্তিক দ্বিতীয় ক্রিসমাসে পরিণত হয়েছে।’

১৯১৩ সালে কংগ্রেসে ফাদার্স ডেকে জাতীয় স্বীকৃতি দেওয়ার একটি বিল প্রবর্তিত হয়। ১৯১৬ সালে রাষ্ট্রপতি উড্রো উইলসন ফাদার্স ডে উদ্‌যাপনে স্পোকানে গিয়ে একে অফিশিয়াল করতে চেয়েও ব্যর্থ হন। ১৯২৪ সালে তৎকালীন মার্কিন রাষ্ট্রপতি ক্যালভিন কুলিজ জাতীয় পর্যায়ে ফাদার্স ডে পালনের পরামর্শ দেন। ১৯৫৭ সালে মেইন অঙ্গরাজ্যের সিনেটর মার্গারেট চেজ স্মিথ তাঁর লিখিত প্রস্তাবে, কংগ্রেসের প্রতি মায়েদের সম্মান করতে গিয়ে ৪০ বছর ধরে বাবাদের অবজ্ঞা করার অভিযোগ আনেন। ১৯৬৬ সালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট লিন্ডন ডি জনসন জুনের তৃতীয় রোববারকে ফাদার্স ডের ছুটির দিন হিসেবে ঘোষণা করেন। এরও ছয় বছর পরে ১৯৭২ সালে রাষ্ট্রপতি রিচার্ড নিক্সনের আইনি স্বাক্ষরে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে পিতৃদিবস উদ্‌যাপন শুরু হয় যুক্তরাষ্ট্র।

দৈনিক বাংলাদেশ আলো পত্রিকায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না