মনপুরায় আশ্রয়কেন্দ্রে রাতেই শুকনা খাবার বিতরণ


বিডি আলো ডেস্ক প্রকাশের সময় : মে ২৬, ২০২১, ৯:০৭ অপরাহ্ন /
মনপুরায় আশ্রয়কেন্দ্রে রাতেই শুকনা খাবার বিতরণ

মো কামরুল হোসেন সুমন

মনপুরা ঘূর্ণীঝড় ইয়াস মোকাবেলায় উপজেলা প্রশাসন প্রচার-প্রচারণা ও বেড়ীবাঁধের বাইরে বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল থেকে ৫শতাধিক পরিবারকে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে স্থানান্তরিত করেছেন। নিরাপদে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা পরিবারগুলোর মাঝে মঙ্গলবার রাতেই শুকনা খাবার বিতরণ করেছেন।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামীম মিঞা গভীর রাতে শুকনা খাবার নিয়ে ১নং মনপুরা ইউনিয়নের মনপুরা ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসায় নিরাপদে আশ্রয় নেওয়া বেড়ীবাধেঁর বাহিরের ২৬টি পরিবারের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণ করেন। এছাড়াও হাজির হাট ইউনিয়নের বেড়ীবাধেঁর বাইরে শতাধিক পরিবারকে বেড়ীর উপর স্থানান্তর করেন। মনপুরার মুল ভুখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন কলাতলী ও কাজীরচরে ২ শতাধিক পরিবারকে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ও সরকারী আশ্রয়নের কলোনীতে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। চরনিজামে দেড় শতাধিক পরিবারকে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিরাপদ আশ্রয়য়ে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

নিরাপদে আশ্রয়নেওয়া পরিবারের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা দুর্যোগ ব্যাবস্থাপনা কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ ইলিয়াছ মিয়া, উপজেলা সিপিপি টিম লিডার মোঃ এরফান উল্যাহ অনি চৌধুরী, ১নং মনপুরা ইউনিয়ন প্যানেল চেয়ারম্যান টিটু ভূইয়া প্রমুখ।

ঘূর্ণীঝড় ইয়াসের প্রভাবে বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে যাওয়া স্পটগুলো পানিউন্নয়নবোর্ড দ্রুত বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে সংস্কার করছেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগন বেড়ীবাঁধ সংস্কারের কাজে সার্বিক সহযোগীতা করতে দেখা গেছে।

এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শামীম মিঞা বলেন, ঘূর্ণীঝড় ইয়াস মোকাবেলায় প্রশাসন ব্যাপক প্রস্তুতি ও তৎপর ছিল। বেড়ীবাধেঁর বাইরে ও বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলে বসবাসরত পরিবারগুলোকে নিরাপদ আশ্রয়ে স্থানান্তরিত করেছি। রাতেই আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থানরত পরিবারগুলোর মাঝে শুকনা খাবার বিতরণ করেছি। ভাঙ্গা বেড়ীবাধগুলো মেরামত করা হচ্ছে। ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে।