ঢাকাসোমবার, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১০:২৪
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিডি আলো ডেস্ক
জুলাই ১৭, ২০২২ ৯:০০ অপরাহ্ণ
পঠিত: 80 বার
Link Copied!

জুবেল আরেফিন, রংপুর ব্যুরো চিফঃ

রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলার ৬ নং-কাফ্রিখাল ইউনিয়নের মালতলা ভবানীপুর গ্রামে আলোচিত মজনু (৩৮) হত্যা মামলা সাত মাস অতিবাহিত হলেও প্রধান আসামী সাইদুলকে গ্রেফতার করতে পারেনি মিঠাপুকুর থানা পুলিশ। এদিকে আসামিদের অব্যাহত হুমকিতে নিরাপত্তাহৃীনতায় ভূগছে বাদীর পরিবার। নিহত মজনুর বৃদ্ধা মা মনজিলা বেগম ও বাবা আতিয়ার রহমান হত্যাকারী সাইদুলের গ্রেফতারের আকুতি জানিয়ে আইনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। মামলার বিবরণ ও বাদীর তথ্যামতে- ঘটনার দিন ৭ ডিসেম্বর ২০২১ ইং তারিখে বাদী মনজিলার নাতি আমিনুল ইসলাম (১৩) নানার বাড়িতে থেকে লেখাপড়া করার সুবিধার্থে প্রতিবেশী সাইদুল হকের বাচ্চাদের সঙ্গে মারামারি ও বিবাদ সৃষ্টি করে। উক্ত বিবাদের জের ধরে আতিয়ার রহমানকে মারধর করার সময় বাদী মনজিলা এগিয়ে গেলে সাইদুলের হাতে থাকা লাঠি দিয়ে আঘাত করলে মনজিলার হাত ভেঙ্গে যায়। মায়ের হাত ভাঙ্গার খবর জানতে পেয়ে মনজিলার ছেলে মজনু মাকে উব্ধারের জন্য দৌড়ে আসলে বিবাদী সাইদুলের হাতে থাকা ঐ লাঠি দিয়ে মজনুর মাথায় আঘাত করে। ফলে মজুনর মাথা ফেটে যায় এবং রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। স্হানীয়দরা আহত মজনু তার মা মনজিলা বাবা আতিয়ার রহমান কে মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করান। পরে মজনুর অবস্থার অবনতি হলে মিঠাপুকুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ঐ দিন রাত ১১ টায় মজনু চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন। ১২ ডিসেম্বর মজুনুর লাশ পোস্ট মর্টেম শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন। উক্ত ঘটনার ৩ দিন পড়ে মিঠাপুকুর থানায় পাঁচ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং- ২০/২০২১। দীর্ঘ তদন্ত শেষে মিঠাপুকুর থানা পুলিশ গত- জুন ২০২২, মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন কোর্টে জমা প্রদান করেন। মামলা হওয়ার দীর্ঘ সাত মাস অতিবাহিত হলেও প্রধান অভিযুক্ত সাইদুল ড্রাইভার ও তার বাবা সাহেব আলি গ্রেফতার না হওয়ায় বাদী মনজিলাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি-ধমকি ও মামলা তুলে নেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করছে। ফলে সামাজিক নিরাপত্তা হৃীনতায় ভূগছেন বাদীপক্ষ। আসামি গ্রেফতার করতে না পাড়ায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বাদি মনজিলা ও তার স্বামী আতিয়ার রহমান। এ বিষয়ে মিঠাপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান জানান, একাধিক জায়গায় অভিযান পরিচালনা করেও অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তাদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রফিক বলেন, আসামিকে গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলমান রয়েছে। মামলার বাদী মনজিলা বেগম এবং আতিয়ার রহমানের আহাজারিতে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। বৃদ্ধ বয়সে তারা ছেলে হত্যার বিচার দেখে যেতে চান।

দৈনিক বাংলাদেশ আলো পত্রিকায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না